শিক্ষা বলতে কী বোঝায়? শিক্ষা কত প্রকার ও কি কি

শিক্ষা বলতে কী বোঝায়: শিক্ষা বলতে কোন ব্যক্তির মধ্যস্থ বা অন্তর্নিহিত গুণাবলীর পূর্ণ বিকাশের এবং পূর্ণ বহিঃপ্রকাশ করতে অব্যাহত অনুশীলনকে বোঝানো হয়।

এক কথায় বলতে গেলে, শিক্ষা বলতে বোঝায়, কোন ব্যক্তির মধ্যস্থ ভালো গুণাবলীর পূর্ণ বহিঃপ্রকাশ সাধনের অনুশীলন বা চেষ্টা।

শিক্ষা বলতে যে শুধু লেখাপড়াকে বুঝানো হয়, জ্ঞান অর্জনকে বুঝানো হয় তা শুধু নয় শিক্ষা হচ্ছে মানুষের অন্তর্নিহিত বিষয় যা তার কাজকর্মের মাধ্যমে প্রকাশিত হয় বা ব্যবহার আচারের মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। শিক্ষা কেউ কাউকে কোনদিন দিতে পারে না এটি হচ্ছে অর্জনের বিষয়। 

শিক্ষা বলতে কী বোঝায়
শিক্ষা বলতে কী বোঝায়?

বর্তমানে আমাদের অনেকের  মতে জ্ঞান বা দক্ষতা অর্জনই হচ্ছে শিক্ষা। কিন্তু পদ্ধতিগতভাবে জ্ঞান লাভের প্রক্রিয়াকেই শিক্ষা বলা হয় না বা বলা যায় না। কোন ব্যক্তি অনেকে ডিগ্রী অর্জনকারী হতে পারে। কিন্তু তাই বলে সেই ব্যক্তি যে সুশিক্ষিত তা নাও হতে পারে। শিক্ষিত হচ্ছে সেই লোক যার অন্তর্নিহিত গুণাবলীর বহিঃপ্রকাশ সুন্দর।

শিক্ষা হচ্ছে ওই ব্যবস্থা যার মাধ্যমে শিক্ষার্থী অনুশীলন করার মাধ্যমে নিজের জ্ঞান বৃদ্ধি করে এবং নিজের পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটায়। অর্থাৎ শিক্ষা কেবলমাত্র অনুশীলনের জন্য নয় বরং গিহার মাধ্যমে জ্ঞান বৃদ্ধির সাথে সাথে পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটানো সম্ভব এবং সামাজিক মূল্যবোধ সৃষ্টি।

শিক্ষার কাজ কি কি

আমরা সকলেই শিক্ষা অর্জন করার বিষয় অনেক বেশি আগ্রহী হয় আছি এবং শিক্ষা অর্জন করতে অন্যকে অনুপ্রেরিত করি। তবে শিক্ষার কাজ কি এ বিষয়ে অনেকেই জানিনা এবং ফলস্বরূপ আমরা অন্যকে সম্পূর্ণরূপে অনুপ্রেরিত করতে পারে না এবং নিজেও অনুপ্রেরিত হই না।

তাই শিক্ষার কিছু উল্লেখযোগ্য কাজ যেগুলো আমাদের জানা প্রয়োজনীয়তা তা নিচে উল্লেখ করা হলো:

১. ব্যক্তি জীবনের পূর্ণতা সাধন করা হলো শিক্ষার কাজ।

২. অর্জিত  জ্ঞানের মাধ্যমে সমাজের সমৃদ্ধি নিয়ে আসা।

৩. জাতীয় কল্যাণ অর্থাৎ জাতির কল্যাণ।

৪. অন্তর্নিহিত সামর্থের বিকাশ ঘটানো।

৫. দক্ষতা অর্জন করা।

৬. মূল্যবোধ সৃষ্টি করে।

৭. সামাজিক সংহতি বা সামাজিক উন্নতি।

৮. সমাজ কৃষ্ট্রির সঞ্চালন।

৯. সামাজিকীকরণ।

১০. ভালো গুণাবলীর বিকাশ ঘটায় ।

১১. সুন্দর মন এবং সুস্থ মন তৈরি হল শিক্ষার কাজ।

১২. শিক্ষার কাজ হলো সত্যের বিকাশ ঘটানো।

১৩. মানুষের জীবনকে জীবিকার উপযোগী করে তোলা হলো শিক্ষার কাজ।

১৪. পুরনো ব্যক্তিত্ব গঠন করা হলো শিক্ষার কাজ।

এগুলো হলো শিক্ষার কিছু কাজ এবং এই কাজগুলো সাধন হয়ে শিক্ষা অর্জন করার মাধ্যমে এবং সেই সাথে প্রতিফলিত হয় সমাজে। শিক্ষা অর্জন করার বিষয় সম্পূর্ণ নিজের কিন্তু এ বিষয়ে আপনি কতটুকু অবগত হয়েছেন তার ধারণা আপনার চরিত্র দেখেই বোঝা যাবে।

শুধুমাত্র শিক্ষা অর্জন করে শিক্ষিত হলে চলবে না বরং শিক্ষার কাজ বাস্তব জীবনে প্রতিফলন যাতে হবে এবং মূল্যবোধে জাগ্রত করতে হবে। একজন পরিপূর্ণ শিক্ষা অর্জন করা ব্যক্তি কখনো শিক্ষিত হতে পারেনা বরং শিক্ষার আসল কাজের সাধন করার মাধ্যমে শিক্ষিত হিসেবে গড়ে ওঠা সম্ভব।

শিক্ষা কত প্রকার ও কি কি

আমরা নানাভাবে শিক্ষা অর্জন করে থাকি এবং এই শিক্ষা কিভাবে অর্জন করা হয়েছে তার উপর ভিত্তি করে এটিকে ভাগ করা যায়। অর্থাৎ শিক্ষার কিছু প্রকারভেদ রয়েছে যেগুলো সম্পর্কে আমাদের সকলের সাধারণ ধারণা রাখা উচিত বা প্রয়োজন।

তাই আপনার ধারণা যেন সর্বদা থাকে এবং আপনি যেন সব কিছু সম্পর্কে অবগত হতে পারেন তাই এর প্রকার জানতে হবে।

চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক শিক্ষায় কিছু প্রকারভেদ যেগুলো বিভিন্ন মাধ্যমে আমাদেরকে শিক্ষিত করার উদ্দেশ্যে শিক্ষা প্রদান করেন।

 শিক্ষা মূলত তিন প্রকার:

১. উপানুষ্ঠানিক বা Informal।

২. অনানুষ্ঠানিক বা Informal।  এবং

৩.  আনুষ্ঠানিক বা Official।

আর আমাদের সমাজ অনুযায়ী শিক্ষা দুই প্রকার:

১.  সুশিক্ষিত বা শিক্ষিত।

২.  কুশিক্ষিত বা অশিক্ষিত।

এগুলো হলো শিক্ষার কিছু প্রকারভেদ আছে যেগুলো সম্পর্কে আমাদের প্রত্যেকের সাধারণ জ্ঞানটুকু রাখা উচিত বা ধারণা রাখা উচিত।

আর এখানে উল্লেখিত প্রত্যেকটি শিক্ষা ভিন্ন ভিন্ন পদ্ধতিতে আমাদেরকে শিক্ষা প্রদান করে থাকেন এবং জ্ঞান বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে কাজ করে থাকেন।

আশা করি শিক্ষা বলতে কী বোঝায় এ বিষয়ের উপর সম্পূর্ণ জ্ঞান অর্জন করতে পেরেছেন আমাদের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ার মাধ্যমে। সুতরাং সকল কিছু যে শিক্ষা হবে এমনটা না বরং শিক্ষা অর্জন করে তার বহিঃপ্রকাশ সম্পূর্ণরূপে ঘটনার মাধ্যম হচ্ছে শিক্ষা।

ইতিমধ্যে আমরা নূন্যতম যে কোন একটি পদ্ধতিতে শিক্ষা অর্জন করতে পেরেছি বলে আমি আশা করি এবং চিন্তা করে। আপনার জ্ঞান যেখান থেকে শুরু হোক না কেন বা যে প্রতিষ্ঠান থেকেই আপনি শিক্ষা অর্জন করুন না কেন প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে আপনাকে নিজের উদ্যোগ থাকতে হবে শিক্ষা অর্জনে।

শিক্ষা কোন ধরনের হাসি-ঠাট্টা নয় বরং এটি হচ্ছে মানুষের অন্তর্নিহিত ভালো গুণের আত্মপ্রকাশের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম।

এই শিক্ষার মাধ্যমে মানুষ নিজেকে সম্পূর্ণরূপে অনুধাবন করতে পারে এবং সেই সাথে সৃজনশীল মনোভাব সৃষ্টির মাধ্যমে বিশ্লেষণ করতে পারে।

আরও পড়ুন: একীভূত শিক্ষা কি?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top