শিক্ষার আসল কাজ কি?

শিক্ষার আসল কাজ কি: মানসিক, সামাজিক এবং আন্তরিক জ্ঞানের বিকাশ ও মূল্যবোধ সৃষ্টি করাই হচ্ছে শিক্ষার আসল কাজ। শিক্ষার আসল কাজ হচ্ছে শিক্ষার্থীদের উৎসাহ প্রদান করা, শিক্ষার্থীর মনের মাঝে সৃজনশীলতার উদ্যোগ প্রস্তুত করা।

অবশ্যই আপনাকে আমাকে শিক্ষা অর্জন করার জন্য শিক্ষার আসল কাজ কি এ বিষয় সম্পর্কে অবগত হওয়া প্রয়োজন। আর যখন আমরা শিক্ষার আসল কাজের সম্পর্কে জানতে পারবো তখন শিক্ষা অর্জন করার পর সেই কাজটি সম্পন্ন করার জন্য চেষ্টা করব।

শিক্ষার আসল কাজে যেহেতু মানসিক, সামাজিক এবং আন্তরিক জ্ঞানের বিকাশ তাই আমাদেরকে শিক্ষা অর্জন একটি প্রতিফলন করতে হবে। অর্থাৎ শিক্ষা অর্জন করার পর আমাদেরকে মানসিক ভাবে মূল্যবোধ জাগ্রত করে প্রার্থী জীবনে তার প্রতিফলন ঘটিয়ে জীবন অতিবাহিত করতে হবে।

শিক্ষার আসল কাজ কি
শিক্ষার আসল কাজ কি?

শুধুমাত্র জ্ঞান অর্জন করাতে সীমাবদ্ধ নয় বরং নিজের বিভ্রান্ত ধারণা এবং ভুলত্রুটির সংশোধন করা হচ্ছে শিক্ষার আসল কাজ। শিক্ষার আসল কাজের কথা বলতে গেলে, প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে শিক্ষা কাজে লাগে।

আপনি কোথাও প্রতারিত হলেন বা কোথাও আপনার ক্ষতি হলো ঠিক এই জায়গাটিতেও শিক্ষার আসল কাজ নিহিত হয়।

অর্থাৎ আপনি কোন স্থান থেকে লাভ কিংবা ক্ষতির মাধ্যমে জ্ঞান অর্জন করলেন, এটা হচ্ছে শিক্ষার আসল কাজ।

মোট কথা বলতে গেলে শিক্ষার আসল কাজ হচ্ছে মূল্যবোধ সৃষ্টি করা এবং জ্ঞান অর্জন করার মাধ্যমে শিক্ষা লাভ করা। আর এই শিক্ষা লাভ করার বিষয়টি সম্পূর্ণরূপে শিক্ষার আসল কাজ বা লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের উপর ভিত্তি করে আমাদের মাঝে প্রতিফলিত হয়।

শিক্ষার আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

শিক্ষার আসল কিছু লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য রয়েছে এবং এই লক্ষ্য উদ্দেশ্য গুলো পূরণের জন্য আমাদেরকে শিক্ষা প্রদান করা হয়ে থাকে। শিক্ষা প্রদান করার মাধ্যমে আমাদের মধ্যে দিয়ে যে সকল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সার্থক হয় সেগুলো সম্পর্কে আমাদের জানা দরকার।

আর সেই সাথে এই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য গুলোর মাধ্যমে আমরা আমাদের জীবনকে কিভাবে প্রবর্তন করতে পারে তা জানতে পারবো।

আর সাথে শিক্ষার আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানার মাধ্যমে আমরা নিজেরাও এ সকল লক্ষ্য খুবই সহজে সম্পন্ন করতে পারব।

নিচে উল্লেখযোগ্য কিছু শিক্ষার আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ প্রদান করা হলো:

  • শিক্ষা একটি মানুষকে যথেষ্ট উন্নত করে এবং সফলতার পথে ধাবিত করে।
  • সুশিক্ষিত মানুষ গড়ে ওঠে দেশ ও সমাজের জন্য উন্নতি করা।
  • বড়, ছোট, ধনী, গরিব এবং ভেদাভেদহীন সমাজ গঠন করে বসবাস করা।
  • বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম হতে সমাজ ও সমাজে উপস্থিত ব্যক্তিদের কে দূরে রাখা।
  • রাষ্ট্র, দেশ, সমাজ এবং পরিবারের উন্নয়নের জন্য কঠোর পরিশ্রম করা।
  • বাস্তবতার দিকে চিন্তা করে, মূল্যবোধ সৃষ্টির মাধ্যমে কাজ করা।
  • নৈতিকতার চর্চা বা অনুশীলন করা এবং সমাজের বুকে তার প্রতিফলন ঘটানো।
  • শুধুমাত্র সার্টিফিকেট পাওয়ার উদ্দেশ্যে শিক্ষা লাভ না করা, সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করা।
  • শিক্ষায় মানুষকে বন্য জীবন হতে বসবাসযোগ্য স্থানে নিয়ে এসেছে, শিক্ষা মানুষকে আলোর পথ দেখায়। 
  • একজন মানুষ কিভাবে সমাজের সঙ্গে সুখে শান্তিতে বেঁচে থাকতে পারবে, তা শিখিয়েছে শিক্ষা।

এগুলো হলো শিক্ষার আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এবং এই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য গুলো পূরণ করাই হচ্ছে আমাদের শিক্ষার মূল কাজ। শিক্ষার মূল কাজ বলতে আমাদের মাঝে এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য গুলো সম্পর্কে একটি ধারাবাহিক চিন্তাভাবনা এসে থাকে যার উত্তর এখানে দেওয়া হয়েছে।

আর অবশ্যই শিক্ষা অর্জন করার ক্ষেত্রে আপনাকে আমাকে এই সকল বিষয়ের উপর লক্ষ্য রেখে অগ্রসর হতে হবে।

কেননা এইভাবে অগ্রসর হওয়ার মাধ্যমে আমরা শিক্ষার আসল লক্ষ্য উদ্দেশ্য এবং কাজ সার্থকভাবে নিজের মধ্যে আয়ত্ত করে নিতে পারব।

শেষ কথা:

শিক্ষার আসল কাজ কি এবং শিক্ষা আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ নিয়ে বিস্তারিত যতগুলো তথ্য দেওয়া ছিল তা উল্লেখ করা হয়েছে।

আর অবশ্যই শিক্ষা অর্জন করে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য এই সকল কাজ ও লক্ষ্য উদ্দেশ্য সম্পর্কে আপনার জানা প্রয়োজন।

শিক্ষা সম্পর্কে সম্পূর্ণ জ্ঞান অর্জন করার ক্ষেত্রে এবং শিক্ষা আমাদেরকে কি প্রদান করেছে তা জানার জন্য এই সকল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য গ্রহণযোগ্যতা পায়। আর অবশ্যই আপনাকে যে সকল বিষয়ের উপর লক্ষ্য রেখে শিক্ষা অর্জন করতে হবে তা উপরোক্ত শিক্ষার কাজে উল্লেখ করা আছে।

এই শিক্ষা হচ্ছে আমাদের মানসিক ও মানবিক মূল্যবোধ জাগরণের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম যার মাধ্যমে আমরা মূল্যবোধ জাগ্রত করতে পারি।

তবে এই মূল্যবোধ জাগ্রত করার ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে আমাকে প্রথমে শিক্ষার আসল কাজ ও লক্ষ্য উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানতে হয়।

একজন শিক্ষিত লোক যেরকম ভাবে নিজের জীবন খুব সহজে পরিচালনা করতে পারে ঠিক এর পিছনে কাজ করে শিক্ষার সকল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। আর একজন ব্যক্তি যখন শিক্ষার আসল কাজ, লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানতে পারে তখন তার জীবনের পরবর্তী ধাপ অনেক বেশি সহজ হয়ে ওঠে।

আর আপনিও যদি আপনার জীবনের পরবর্তী ধাপ কল্যাণকর করতে চান তাহলে অবশ্যই শিক্ষার আসল কাজ অনুযায়ী শিক্ষা অর্জন করুন।

শিক্ষা শুধুমাত্র জ্ঞানের বিকাশ এমন না বরং ইহার মাধ্যমে বিচার-বিশ্লেষণ ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং সৃজনশীলতা সৃষ্টির মাধ্যমে নতুন কিছু উদ্ভাবন হয়।

আরও পড়ুন: সু শিক্ষা কি?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top