ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে?

নিরাপত্তা সম্পর্কে অনেকের জ্ঞান থাকলেও, ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে এই বিষয়টি সম্পর্কে অনেকের ধারণা নেই। তাই এ বিষয়টি নিয়ে সম্পূর্ণ ধারণা আপনাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য আমাদের পোস্টটি সাজানো হয়েছে।

মূলত নিরাপত্তা বলতে আমরা বুঝে থাকে কোন ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাওয়া এবং ক্ষতির আশঙ্কা দূর করা। আর নিরাপত্তা বলতে আরও যে সকল বিষয়গুলোকে বোঝানো হয় সেগুলো হচ্ছে উন্নত হওয়া এবং উন্নতির চিন্তা করা ইত্যাদি।

ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে
ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে?

ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে: ব্যক্তি স্বাধীনভাবে চলাফেরা করে সকল মৌলিক অধিকার পাওয়ার মাধ্যমে জীবনে নিরাপত্তা ও উন্নতি গড়ে তোলাকে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বলে। অর্থাৎ মানবাধিকার এবং স্বাধীনতার পরিপূর্ণ সুবিধা পাওয়া হচ্ছে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা।

আরেক ব্যক্তিগত নিরাপত্তা হচ্ছে একটি স্বাধীনতার বিশেষ শাখার অন্তর্ভুক্ত জড়িত বিষয়বস্তু।

অর্থাৎ স্বাধীনতার জন্য নিরাপত্তা প্রয়োজন হয় এবং ব্যক্তির নিরাপত্তা শুধুমাত্র স্বাধীনতা এবং মানবাধিকার দ্বারা পূরণ করা সম্ভব।

ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কিভাবে করা যায়?

বেশ কয়েকটি বিষয়ের উপর আলোকপাত করার মাধ্যমে আমরা ব্যক্তিগত নিরাপত্তার অধিকারের সম্পন্ন করতে পারে। তাই যেন আমাদের আশেপাশে ব্যক্তিগত নিরাপত্তার সুনিশ্চিত হয় তাই আজকের এই পোস্টটিতে এই বিষয়টি বলবো।

ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • চলাফেরার স্বাধীনতা, কথা বলার স্বাধীনতা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ স্বাধীনতা প্রদান করা।
  • অত্যাচার বা অত্যাচারের হাত থেকে মুক্ত করে দেওয়া এবং এই বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা।
  • যেকোনো ধরনের মৌলিক অধিকার যেন নষ্ট না হয় এই বিষয়ের উপর সুনিশ্চিত ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
  • উন্নত জীবনযাপন গঠনের উদ্দেশ্যে প্রত্যেকটি বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা এবং মানসম্মত পরিবেশ তৈরি করা।
  • ব্যক্তিগত নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সমাজ এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করা।

এগুলো ছিল বেশ কয়েকটি করণীয়, যে করণীয়গুলো অবলম্বন করার মাধ্যমে নিশ্চিতভাবে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সম্ভব।

তাই আমাদেরকে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সজাগ থাকতে হবে এবং উপরোক্ত করণীয় গুলো অবলম্বন করতে হবে।

শেষ কথা:

ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কাকে বলে এবং কিভাবে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা যায় তার একটি ধারণা আজকের পোস্টটিতে রয়েছে। তাই অবশ্যই আমি মনে করি যে আজকের পোস্টের ধারণাটি সম্পূর্ণরূপে প্রত্যেকটি মানুষের জন্য উপকারী হবে।

আর অবশ্যই আমাদেরকে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে সর্বদা চেষ্টা ও পরিশ্রম করে যেতে হবে।

যখন আমরা ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে পারব তখন প্রত্যেকটি মানুষ সবল হয়ে গড়ে উঠবে এবং উন্নত হবে।

আর ব্যক্তিগত নিরাপত্তার মাধ্যমে প্রত্যেকটি মানুষ উন্নত হওয়ার কারণে দেশ, সমাজ এবং পরিবেশ উন্নত হবে। দেশের যাবতীয় পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য জনগণ গুরুত্বপূর্ণ এবং এর জনগণ ব্যক্তিগত নিরাপত্তা দ্বারা শক্তিশালী হবে।

তাই অবশ্যই আমাদেরকে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে হবে এবং এর জন্য প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ নিতে হবে।

অবহেলা এবং অত্যাচার এই দুইটি কারণে মূলত ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বিভিন্ন হয় এবং আমাদেরকে এটি ঠিক করতে হবে।

আরও পড়ুন: দাউদ এর ঔষধ এর নাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *