বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের কোন কারাগারে আটক রাখা হয়

বাংলার বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের কোন কারাগারে আটক রাখা হয়: বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের মিঁয়াওয়ালী কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক রাখা হয়। ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চে পাকিস্তানি নৃশংস হানাদার বাহিনীরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় পশ্চিম পাকিস্তানে।

পশ্চিম পাকিস্তানের নিয়ে যাওয়ার পর তিনাকে আটক করে রাখা হয় ২৮৮ দিন আর মাসের হিসাবে অনুযায়ী ধরলে ৯ মাস ১৩ দিন। আর তিনাকে এই কারাগারের মধ্যে আটক করে রাখা হয় শুরু থেকে শেষ দিন পর্যন্ত হিসাবে ২৭২ দিন।

বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের কোন কারাগারে আটক রাখা হয়
বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের কোন কারাগারে আটক রাখা হয়

১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে হারিয়ে বাংলাদেশ জয়লাভ করেছিল এবং পাকিস্তানিরা আত্মসমর্পণ করেছিল।

এই সময় ১৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালে ভুট্টো কে নিউইয়র্ক হতে ফিরিয়ে আনার জন্য বিমান পাঠানো হয়।

২০ ডিসেম্বর তিনাকে রাওয়াল পিন্ডির রাষ্ট্রভবনে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানে তিনাকে ইয়াহিয়া খানের কাছ থেকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি এবং প্রধান সামরিক আইন প্রশাসকের দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

ক্ষমতা দেওয়ার সময় ইয়াহিয়া খান ভুট্টার কাছে একটি শেষ প্রার্থনা করে আর প্রার্থনাটি হলো ক্ষমতা হস্তান্তর এর আগে আমাকে শেখ মুজিবকে হত্যা করতে দাও। আর তিনি এও বলেন যে আমার জীবনে যদি আমি কোন ভুল করে থাকি তাহলে সেই ভুলটি হচ্ছে শেখ মুজিবকে ফাঁসি না দেওয়া।

আর এই বিষয় সম্পর্কে ভুট্ট ভালোভাবে জানত যে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলে এর পরিণতি ভালো হবে না।

বাংলাদেশের মধ্যে আটক সকল পাকিস্তানিদের করুন পরিণতি হবে আর এর সকল দায়িত্ব বহন করতে হবে পাকিস্তান সরকারকে।

আর এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক চাপ ছিল যদি মুজিবের কিছু হয় তাহলে এর দায় দায়িত্ব পাকিস্তানকেই নিতে হবে।

আরো অন্যান্য অনেক বিষয় এই বিষয়টির সাথে জড়িত ছিল আর রাষ্ট্রপতি হিসেবে ভুক্ত এটি বুঝতে পেরেছিল।

মিঁয়াওয়ালী কারাগার কোথায় অবস্থিত

মিঁয়াওয়ালী কারাগার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ থেকে ২৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ছিল।

আর রাওয়াল পিন্ডি থেকে মিঁয়াওয়ালী কারাগার ২১৮ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ছিল।

পাকিস্তানের মধ্যে অবস্থিত পাঞ্জাবের মিয়াওয়ালি জেলার মিয়াওয়ালী শহরে উপস্থিতিকে প্রাচীন এবং ঐতিহাসিক কারাগার হচ্ছে এটি।

এটি মিয়ানুয়ালি শহর থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে রাওয়াল পিন্ডি সড়কে বা সড়কের ধারে অবস্থিত ছিল। 

এই মিঁয়াওয়ালী কারাগারটি ১৯০৪ সালে নির্মাণ করা হয়েছিল যেখানে ২৯৩ জন আসামিকে বন্দী করা যায়।

আর ১৯১৩ সালে এটিকে জেলা কারাগার হিসেবে উন্নতি দেওয়া হয় এবং এর মধ্যে ২১৮ জন আসামি ছিল।

এখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে বন্দী করে রাখা হয় এখানে তিনাকে নির্জনে রাখা হয়েছিল।

রেডিও তো দূরের কথা বাতাস করার জন্য একটি হাতপাখাও ছিল না আর বলা হয় ঘরটি ছিল অন্ধকার এবং গভীর।

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে পশ্চিম পাকিস্তানের কোন কারাগারে আটক রাখা হয় । আর সেই কারাগারটি কোথায় অবস্থিত বা কোন জায়গায় সেই কারাগারটি অবস্থিত।

আরো পড়ুন:  বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *