পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম | পাতলা পায়খানা বন্ধের এন্টিবায়োটিক ঔষধ

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম এবং পাতলা পায়খানা বন্ধের এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম এখানে উল্লেখ করব। আর অবশ্যই বর্তমানে বিভিন্ন সময় মানুষ পাতলা পায়খানায় অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে পানি স্যালাইন গ্রহণ করে থাকে।

প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে পানি স্যালাইন এর ভূমিকার রয়েছে কিন্তু কার্যকর চিকিৎসার জন্য পাতলা পায়খানার ঔষধ নিতে হবে। আর পাতলা পায়খানার জন্য কিছু কাজ করে ঔষধ রয়েছে যেগুলো খুব সহজে আপনার আমার পাতলা পায়খানা দূর করতে পারে।

আর এই সকল ঔষধ গ্রহণ করার ফলে পাতলা পায়খানা থেকে আমাদের শরীরের ক্লান্তি সৃষ্টি হওয়া রোধ হবে এবং পাতলা পায়খানা দূর হবে।

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম
পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম?

তাই বলে আপনি প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে পানি স্যালাইন বা ওরস্যালাইন গ্রহণ করবেন না এমনটি আমি বলতে চাইনি। বরং আপনি প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে অবশ্যই খাবার স্যালাইন গ্রহণ করবেন এবং সেই সাথে কার্যকরী পদ্ধতি হিসেবে পাতলা পায়খানা ঔষধ নিবেন।

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • সিপ্রোসিন 500 (Ciprocin 500) (প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের জন্য)
  • সিপ্রোসিন 250 (Ciprocin 250) (বাচ্চাদের জন্য)
  • ফিলমেট 400 (Filmet 400) (বাচ্চাদের জন্য সেবন যোগ্য নয়)
  • ওরস্যালাইন (সর্বক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী)

এই কয়েকটি হলো পাতলা পায়খানা বন্ধ করার এন্টিবায়োটিক ঔষধের নাম এবং এগুলো প্রত্যেকটি আপনার পায়খানা ও ঘাটতি পূরণ করতে পারে।

আরো অবশ্যই সবচেয়ে বেশি কার্যকরী উপায় হচ্ছে আপনার পাতলা পায়খানা দূর করার জন্য ওরস্যালাইন পানি দিয়ে পান করা।

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট খাওয়ার পূর্বে ও পরে করনীয়

আমরা যখন পাতলা পায়খানা আক্রান্ত হয়ে যায় তখন আমাদের শরীরে নানা প্রকার ও অসুবিধা ও ক্লান্তির সৃষ্টি হয়। আর এই ক্লান্তি দূর করার জন্য আমাদেরকে পাতলা পায়খানার ঔষধ গ্রহণ করার পূর্বে এবং পরে কিছু করণীয় মেনে ঔষধ নিতে হবে।

আর এই সকল করণীয়গুলো অবশ্যই আপনাকে অবলম্বন করতে হবে যদি আপনি পাতলা পায়খানা দূর ও মুক্তি পেতে চান।

চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক পাতলা পায়খানা ঔষধ গ্রহণের পূর্বে ও পরে কি কি করণীয় রয়েছে আমাদের মেনে চলার জন্য।

পূর্বে করনীয়:

  • খাবার খেয়ে নিতে হবে, তবে ভরপুর খাওয়া উচিত নয় কিছু জায়গা খালি রাখতে হবে।
  • বেশি বেশি করে পানি সেবন করতে হবে এবং শরীর ঠান্ডা রাখতে হবে।
  • দুশ্চিন্তা মুক্ত হতে হবে এবং ঔষধ ভালোভাবে গ্রহণ করতে হবে।

পরে করনীয়:

  • প্রথমে ঔষধটি ভালোভাবে খেতে হবে এবং বেশি করে পানি পান করতে হবে।
  • বিশ্রাম করার চিন্তাভাবনা না করে কমপক্ষে 30 পা হাঁটতে হবে।
  • প্রায় আধা ঘন্টা অতিবাহিত হওয়ার পর বিশ্রাম নিতে হবে।

এগুলো ছিল পাতলা পায়খানার পূর্বে এবং পরে করণীয় কিছু কাজ, যেগুলো অবশ্যই আপনাকে পাতলা পায়খানায় মেনে চলতে হবে। পাতলা পায়খানার সময় যেহেতু আমাদের অনেক বেশি ক্লান্তি লাগে সেজন্য ক্লান্তি দূর করার জন্য খাবার ওরস্যালাইন নিতে হবে।

আর আপনি আমাদের দেওয়া ঔষধ গুলো গ্রহণ করার মাধ্যমে খুব সহজে নিজের পাতলা পায়খানা বন্ধ করতে পারেন।

পাতলা পায়খানা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর আপনার পায়খানা স্বাভাবিক হয়ে যাবে এবং ধীরে ধীরে আপনার ক্লান্ত শরীর শক্তি ফিরে পাবে।

উপসংহার:

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নাম এবং পাতলা পায়খানার এন্টিবায়োটিক ঔষধ এর নাম যেগুলো কার্যকরী তা উল্লেখ করা হয়েছে। আর আপনারা এই সকল কার্যকরী ঔষধ গ্রহণ করার মাধ্যমে আপনার পাতলা পায়খানা দূর করে ক্লান্ত শরীরে শক্তি আনতে পারেন।

আর অবশ্যই আমি যে সকল করণীয় পূর্বে ও পরে উল্লেখ করেছে ঔষধ গ্রহণের সময় সেগুলো মেনে ঔষধ গ্রহণ করুন।

ফলে দেখা যাবে আপনার পাতলা পায়খানা দ্রুত ঠিক হয়ে গেছে এবং আপনি সুস্থ অনুভব করছেন এবং সাথে শক্তি ফিরিয়ে পেয়েছেন।

আমাদের শরীরে নানা কারণে পাতলা পায়খানা দেখা দিতে পারে এবং সেই সাথে আমাদের পেটের মধ্যে প্রচন্ড ব্যথা দিতে পারে। আর এই সকল সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে ওরস্যালাইন গ্রহণ করা এবং প্রাথমিকভাবে এই পদ্ধতি অনেক বেশি কার্যকর।

শুধুমাত্র প্রাথমিকভাবে যে ওরস্যালাইন গ্রহণ করা পাতলা পায়খানার জন্য কার্যকর এমন নয় বরং পাতলা পায়খানার জন্য সর্বদা কার্যকর।

আপনার যদি আমাশয় সমস্যা হয়ে থাকে কখনো তাহলে তবুও আপনি ওরস্যালাইন গ্রহণ করুন কেননা এটি আমাশয়ের জন্য কার্যকর প্রক্রিয়া।

আর ওরস্যালাইনের মধ্যে লেখা থাকে যে কতটুকু আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ পানির মধ্যে মিশিয়ে গ্রহণ করবেন ক্লান্তি দূরের জন্য। উপযুক্ত নিয়ম অবলম্বন করার মাধ্যমে আপনি আপনার পাতলা পায়খানা দূর করতে পারেন এবং নিজেকে স্বাভাবিক পায়খানা করতে দেখতে পারেন।

আরও পড়ুন: প্রস্রাবে ইনফেকশন হলে কি ঔষধ খেতে হবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!