নিঃসরণ কাকে বলে? নিঃসরণ বলতে কি বুঝায়?

নিঃসরণ কাকে বলে: সরু ছিদ্রপথে উচ্চ ঘনত্বের স্থান থেকে নিম্ন ঘনত্বের স্থানের দিকে কোন গ্যাস স্বজরে বেরিয়ে আসার প্রক্রিয়াকে নিঃসরণ বলে। এই নিঃসরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা নানা ধরনের কাজ করে থাকি যেমন: যানবাহন চালানোর জন্য একটি সিলিন্ডার থেকে সজোরে গ্যাস বেরিয়ে এসে ইঞ্জিনের প্রবেশ করে, যার ফলে ইঞ্জিন চালু হয়।

সিলিন্ডার থেকে সজোরে গ্যাস বেরিয়ে আসার এই নিঃসরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা ইঞ্জিন চালু করা সহ অনেক কাজ করে থাকি।

কোন গ্যাস উচ্চচাপে একটি নির্দিষ্ট পাত্রে বদ্ধ করে দেওয়া হয় তখন গ্যাসের কণাগুলো পাত্র থেকে বের হওয়ার জন্য ছোটাছুটি করে।

যখন গ্যাসের মাত্রা বেড়ে যায় তখন এদের মধ্যে যে দূরত্ব তা কমে গেলেও পাত্র হতে বেরিয়ে আসার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়।

নিঃসরণ কাকে বলে
নিঃসরণ কাকে বলে?

আর এইভাবে প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ার মাধ্যমে সরু একটি ছিদ্রপথ পাওয়া মাত্র গ্যাস গুলো খুব দ্রুত বের হতে থাকে বা নিঃসরিত হতে থাকে। কোন গ্যাস যখন এইভাবে উচ্চ ঘনত্বের স্থান থেকে নিম্ন ঘনত্বের স্থানের দিকে বেরিয়ে আসে বা বেরিয়ে আসার যে বৈশিষ্ট্য তার নাম হচ্ছে নিঃসরণ।

এই নিঃসরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে, বর্তমানে কাজ করা সহজ হয়েছে এবং হাইড্রলিক সকল গাড়ি এ নিঃসরণের মাধ্যমে কর্ম দক্ষতা অর্জন করে।

বর্তমানে নিঃসরণ ব্যবহার করে অনেক কাজ করা যায় এবং সেই সাথে খুব সহজে একটি যানবাহনকে উচ্চ শক্তি প্রদান করা যায়।

বলতে গেলে, নিঃসরণ একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া যা প্রত্যেকটি গ্যাসের দ্বারা সংঘটিত হওয়া সম্ভব শুধুমাত্র উচ্চচাপে রাখার ফলে।

নিঃসরণ বলতে কি বুঝায়?

নিঃসরণ বলতে আমরা সরু ছিদ্রপথে দ্বারা মিশ্রিত গ্যাসকে বোঝায় যা উচ্চচাপের স্থান থেকে নিম্নচাপের স্থানে প্রবাহিত হয়।

প্রক্রিয়াটি ব্যাখ্যা করতে বলা যায়, হাতে যদি একটি বেলুন থাকে এবং তাতে আমরা যদি বাতাসে ভর্তি বা পরিপূর্ণ করে ফেলি।

তাহলে বেলুনের ভিতরে উপস্থিত বাতাসগুলো উচ্চ চাপের সংকুচিত অবস্থায় বিদ্যমান থাকবে। ঠিক এই অবস্থায় যদি আমরা বেলুনের গায়ে একটি ছিদ্র করে দেয় তাহলে, বেলুন এ উপস্থিত গ্যাস গুলো ওই সরু ছিদ্রপথ দ্বারা বেরিয়ে আসবে।

অর্থাৎ বেলুনের ভিতর থেকে একটি সরু ছিদ্রপথের মাধ্যমে বাতাস বেরিয়ে আসার এই স্বাভাবিক প্রক্রিয়াকে নিঃসরণ বলা হয়।

নিঃসরণ বলতে সাধারণত গ্যাস নিঃসরণকে বোঝানো হয় যেখানে, উচ্চচাপের স্থান থেকে নিম্নচাপের স্থানের দিকে সজোরে বেরিয়ে আসে।

নিঃসরণের সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা দিতে গেলে অবশ্যই আমাদেরকে একটি উদাহরণ দিলে বেশ মন্দ হয় না তাই এখানে উদাহরণ দিব। যেন নিঃসরণের ব্যাখ্যাটি আপনাদের মাঝে সুস্পষ্টভাবে পরিলক্ষিত হয় এবং আপনারা নিঃসরণ সম্পর্কে কোন প্রশ্ন করতে না পারেন।

আমরা হয়তোবা গ্যাস সিলিন্ডার অনেকেই দেখেছি চুলা জানানোর জন্য এবং এখান থেকে আমরা নিঃসরণের ব্যাখ্যা পাবো।

যখন গ্যাস চুলা সঙ্গে গ্যাস সিলিন্ডার সংযোগ স্থাপন করি তখন শব্দ হয় যা বাতাস নির্গত হওয়ার শব্দ যা হচ্ছে নিঃসরণ।

শেষ কথা:

নিঃসরণ কাকে বলে এবং নিঃসরণ বলতে কি বুঝায় এ বিষয়ের উপর কিছু তথ্য এখানে আপনার জ্ঞান বিকাশের জন্য উল্লেখ করেছি। অবশ্যই আমাদেরকে নিঃসরণ সম্পর্কে জানতে হবে কেননা এই নিঃসরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বর্তমানে অনেকগুলো কাজ খুব সহজে সমাধান করা সম্ভব হয়েছে।

এই নিঃসরণ প্রক্রিয়াটি ব্যবহার করে আমরা একটি যানবাহনকে উচ্চ ক্ষমতা প্রদান করতে পারে কাজ করার জন্য এবং দ্রুত করার জন্য।

উদাহরণ: মাটি খনন করার জন্য যে প্রযুক্তি ব্যবহার করি তার প্রত্যেকটি নিঃসরণের মাধ্যমে চাপ তৈরি করে এবং কাজ সম্পন্ন করে।

মাটি খনন করার জন্য অনেক বেশি শক্তির প্রয়োজন হয় এবং এই শক্তিতে নিঃসরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খুব সহজে তৈরি করা সম্ভব। অর্থাৎ এই নিঃসরণ প্রক্রিয়াটি অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে থাকে যা একটি প্রযুক্তিকে অনেক বেশি কর্মদক্ষতা প্রদান করে এবং সেই সাথে নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

মূলত নিঃসরণ এই প্রক্রিয়াটি আমরা নিয়ন্ত্রণ করার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের কাজ সহজে সমাধান করতে পারে এবং উচ্চশক্তি উৎপন্ন করতে পারি।

উচ্চশক্তি উৎপন্ন করার ক্ষেত্রে হাইড্রলিক বা নিঃসরণের চাপের কোন তুলনা হয় না কেননা, এর দ্বারা পর্যাপ্ত শক্তি উৎপাদন করা সম্ভব।

আরও পড়ুন: কণার গতিতত্ত্ব কাকে বলে?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top