জ্বর কমানোর দোয়া (অর্থসহ)

আজকের পোস্টটি পড়ে জানতে পারবেন: জ্বর কমানোর দোয়া, জ্বর কমাতে যে দোয়া পড়তে হয় এবং জ্বর থেকে মুক্তি পাওয়ার দোয়া ইত্যাদি। আপনিও যদি দোয়া পড়ে নিজের জ্বর সুস্থ করতে চান তাহলে আজকের পোস্টে আপনার জন্য।

তবে অবশ্যই আমাদের জ্বর আসলে প্রথমে দোয়া পাঠ করতে হবে, আর এমনটি করার ফলে আমাদের মঙ্গল হবে।

আমরা অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে চিকিৎসা নেই কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী আল্লাহর নিকট অসুস্থতা মুক্তির নেয়ামত চাইতে হবে।

জ্বর কমানোর দোয়া
জ্বর কমানোর দোয়া

জ্বর কমানোর দোয়া: বিসমিল্লাহিল কাবিরি, আউজুবিল্লাহিল আজিমি মিন শাররি কুল্লি ইরকিন না’আরিন, ওয়া মিন শাররি হাররিন নার। আপনি এই দোয়াটি পাঠ করার মাধ্যমে খুবই সহজে নিজের জ্বর কমাতে পারেন এবং জ্বর থেকে মুক্তি পাবেন।

যেহেতু বলা হয়েছে: তোমার যদি পায়ের জুতা ছিড়ে যায়, তাহলে সে ক্ষেত্রেও তোমাকে আল্লাহর নিকট সাহায্য চাইতে হবে।

আর এইভাবে কাজ করা সর্বোত্তম হবে তাই, জ্বর আসলে আল্লাহতালা নিকট হতে সুস্থতা নেয়ামত চাইতে হবে।

জ্বর কমানোর দোয়া বাংলা অর্থ

আমরা তো জ্বর নিরাময়ের দোয়া জানালাম কিন্তু এই জ্বর নিরাময়ের দোয়া দ্বারা কি বোঝানো হয়? এই বিষয়টি সম্পর্কে জানতে হলে অবশ্যই আমাদেরকে জোর কমানোর দোয়াটির সঠিক অর্থ সম্পর্কে অবগত থাকতে হবে।

তাই সকলকে অবগত করার জন্য আমি আজকের এই পোষ্টের মধ্যে জোর কমানোর দোয়া বাংলা অর্থ দিব।

আর বাংলা অর্থ পাওয়ার মাধ্যমে আপনি জোর কমানোর দোয়ার বাংলা বুঝতে পারবেন এবং অর্থ অনুযায়ী বিশ্বাস পাবেন।

জ্বর নিরাময়ের দোয়া বাংলা অর্থ: মহান আল্লাহর (মালিক) নামে আমি মহান আল্লাহর কাছে আশ্রয় (আশ্রয়দাতা) প্রার্থনা করছি রক্তচাপের আক্রমণ থেকে এবং জাহান্নামের উত্তপ্ত আগুনের মন্দপ্রভাব থেকে (জাহান্নাম থেকে রক্ষাকারী)।

অর্থাৎ আপনি যদি জোর ঘুমানোর দোয়াটি পাঠ করেন সেক্ষেত্রে আপনার দুই দিক থেকে উপকার আসে যাবে।

একদিকে হল আপনি জ্বর নিরাময়ের জন্য আল্লাহ তায়ালা নিকট প্রার্থনা করতে পারলেন এবং জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাওয়ার দোয়া করতে পারলেন।

শেষ কথা:

জ্বর নিরাময়ের দোয়া বাংলা অর্থসহ জানতে চাইলে আজকের পোস্টটি সম্পূর্ণরূপে পড়তে থাকুন এবং জানতে থাকুন। কেননা আজকের পোস্টটি সম্পূর্ণরূপে পড়ার মাধ্যমে আপনারা জ্বর নিরাময়ের দোয়া সম্পর্কে অবগত হতে পারবেন বাংলা অর্থসহ।

আমি বাংলা অর্থ সহ প্রদান করেছি আপনারা অর্থ বুঝে সঠিক মত নিজের ঈমানকে দৃঢ় করতে পারেন।

আর আপনার ঈমান যত বেশি দৃঢ় হবে আল্লাহ তা’আলা আপনার উপর তত সন্তুষ্ট হবে এবং জান্নাত কবুল করতে পারেন।

তাই অবশ্যই আমাদের জ্বর হলে, আমাদের সকলের উচিত হবে জ্বর কমানোর দোয়া পাঠ করা। আর জ্বর কমানোর দোয়া পাঠ করার মাধ্যমে আমাদের জ্বর আল্লাহ তাআলার অশেষ রহমতের মাধ্যমে  সহজেই ঠিক হয়ে যেতে পারে।

আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে সুস্থ রাখেন এবং অসুস্থ থাকলে সুস্থতা দান করেন এটাই কামনা রইল।

আর অবশ্যই মনে রাখবেন আপনার যেকোন অসুখ হলে আপনি আল্লাহ তাআলার নিকট আরবিতে না হলেও বাংলাতে সুস্থতা চেয়ে নিবেন।

আরও পড়ুন: আয়াতুল কুরসি বাংলা উচ্চারণ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *