ছাগলের দুধের উপকারিতা

ছাগলের দুধের উপকারিতা এর কথা বলতে গেলে, এটি একটি মহা ঔষধের মতো। আমরা বিভিন্ন সময় ছাগলের দুধ খাওয়ার চেষ্টা করে থাকি বা ছাগলের দুধ খাওয়ার জন্য উৎসাহিত হয়। কিন্তু দেখা যায় বিভিন্ন সময় সন্দেহ জনিত কারণে আমরা ছাগলের দুধ খাওয়া থেকে বিরত থাকি এবং পুষ্টি পায় না।

অনেকে আছে যারা ছাগলের দুধ খেলে কোন সমস্যা হবে কিনা এ বিষয়ের উপর অনেক বেশি চিন্তা ভাবনা করার ফলে ছাগলের দুধ খায় না। তবে ছাগলের দুধ যে, আসলে অনেক উপকারে এ বিষয়টি প্রত্যেকটির ডাক্তার উল্লেখ করেছেন এবং খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

ছাগলের দুধের উপকারিতা
দেহের জন্য ১৫+ ছাগলের দুধের উপকারিতা

১৫টি উল্লেখযোগ্য ছাগলের দুধের উপকারিতা, নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • ছাগলের দুধ খাওয়ার ফলে এলার্জির প্রবণতা কমে যায়।
  • দেহের অস্থি মজবুত এবং ক্ষয়পূরণে ছাগলের দুধ অধিক কার্যকরী।
  • আমাদের দৈনিক ক্যালসিয়াম এবং ফেটে চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম  এই দুধ।
  • আমাদের শরীরের বিপাক প্রক্রিয়া বাড়াতে এক গ্লাস দুধ অধিকার কার্যকরী।
  • গরুর দুধের তুলনায় ছাগলের দুধে প্রতি ঘন মিলিলিটারে প্রায় ১২% লেক্টিস কম থাকে।
  • লেক্টিস এর পরিমাণ কম থাকার ফলে এলার্জির প্রবণতা কমে যায় এবং গ্যাসের সমস্যা দূর হয়। 
  • শিশুদের ক্ষেত্রে ছাগলের দুধ মাতৃদুদের সমতুল্য হয়ে থাকে।
  • ছাগলের দুধে অত্যাধিক পরিমাণে ক্ষতিকারক চর্বি থাকে না।
  • ক্ষতিকারক চর্বি না থাকার ফলে হার্ট রোগ দূর হয়।
  • ছাগলের দুধ খাওয়ার ফলে শরীরের ফ্যাট কমে যায়।
  • মানুষের শরীরকে সক্রিয় করে তুলতে ছাগলের দুধের বিকল্প নেই।
  • শরীরের তাপমাত্রা ও শক্তি বৃদ্ধিতে ছাগলের দুধ অধিক সহায়ক।
  • দুর্বল রোগীদের জন্য এবং দুর্বল শরীরের অধিকারী লোকদের জন্য ছাগলের দুধ অধিক উপকারী।
  • সর্দি, কাশি এবং অন্যান্য রোগ নিরাময়ের ক্ষেত্রেও ছাগলের দুধ খাওয়া উচিত।
  • রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে এন্টিবডি উৎপাদন করতে পারে।
  • চিন্তা শক্তি ও মেধা শক্তি এবং সৃজনশীলতা বৃদ্ধিতে ছাগলের দুধ খাওয়া উচিত।

এগুলো হলো ছাগল থেকে পাওয়া দুধ খাওয়ার উপকারিতা, এবং এ উপকারিতা গ্রহণের জন্য ছাগলের দুধ খেতে হবে। ছাগলের দুধ যে আসলে শরীরের জন্য অনেক বেশি পুষ্টিগুণে ভরা তা এই সকল উপকারিতা সম্পর্কে জানার মাধ্যমে জানা যায়।

শিশুকে কি ছাগলের দুধ পান করানো যাবে?

ছাগলের দুধ নিয়ে অনেকের মাথায় অনেক ধরনের প্রশ্ন রয়ে যায়, সে সকল প্রশ্নের মধ্যে শিশুকে ছাগলের দুধ পান করানোটি অন্যতম। আপনি যদি শিশুকে ছাগলের দুধ পান করা যাবে কিনা এ বিষয়ে উত্তর পেতে চান। তাহলে এ প্রশ্নের এক কথায় উত্তর হল যে, জি হ্যাঁ আপনি অবশ্যই আপনার শিশুকে ছাগলের দুধ পান করাতে পারেন।

কেননা ছাগলের দুধ মাতৃ দুধের সমতুল্য বলে  গবেষকরা বা বিশেষজ্ঞরা বলেছেন। আর প্রাচীনকাল থেকে ছাগলের দুধ শিশুকে খাওয়ার প্রথা চালু হয়ে আসতেছে। ছাগলের  শরীরে চর্বির পরিমাণ কম থাকে আর এরা সবুজ ঘাস ও পাতা খেতে বেশি পছন্দ করে। যার ফলে এদের  শরীর থেকে উৎপন্ন দুধে চর্বি পরিমাণ কম থাকলেও ক্যালোরির পরিমাণ বেশি হয়ে যায়।

আর এর ফলে শিশু পর্যাপ্ত শক্তি পায় এবং গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্ত হয় তাছাড়াও, হার্ট রোগের কোন সুযোগ থাকে না।

আর এ সকল উপকারের দিকের উপর লক্ষ্য রেখে এটি সুনিশ্চিত যে আপনি অবশ্যই আপনার শিশুকে ছাগলের দুধ পান করাতে পারেন।

উপরে আমরা যে সকল উপকারিতা উল্লেখ করেছি তার প্রত্যেকটি উপকারিতা পর্যন্ত আপনার শিশু পেতে পারে ছাগলের দুধ খাওয়ার ফলে। তাই আপনি আপনার শিশুকে নির্দ্বিধায় ছাগলের দুধ পান করাতে পারেন এবং পরিপূর্ণ পুষ্টি প্রদান করতে পারেন।

ছাগলের দুধ শরীর স্বাস্থ্য এবং সুস্থতা উভয় ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। আর স্বাস্থ্যের দিকে নজর রেখে আপনার শিশুর যদি কোন প্রকার পুষ্টি সমস্যা থাকে তাহলে অবশ্যই ছাগলের দুধ পান করাবেন। স্বাস্থ্যের জন্য সকল প্রকার উপকারে পুষ্টি গুনাগুন প্রায় ছাগলের দুধে পাওয়া যায়, যা অবশ্যই আপনার শিশুর জন্য উপকারী।

শেষ কথা:

ছাগলের দুধ হচ্ছে অবশ্যই একটি উপকারী খাদ্য আমাদের শরীরের জন্য কেননা এটি অনেক ক্ষেত্রে আয়ুর্বেদিক হিসেবে ব্যবহৃত হয়। চিন্তা করুন যে, দুধ দ্বারা আয়ুর্বেদিক ঔষধ তৈরি করা যায় সে দুধ কতইনা উপকারী হবে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য।

আপনি যদি কোন ধরনের বিভ্রান্তিতে থাকেন যে ছাগলের দুধ খাওয়া আপনার পক্ষে উপকারী হবে কিনা তাহলে উপরের ব্যাখ্যাগুলো দেখে নিন।

তাহলে অবশ্যই আমি বলব যে ছাগলের দুধ আপনার স্বাস্থ্যের জন্য অনেক বেশি উপকারে হিসেবে প্রমাণিত হবে সুস্থ থাকার জন্য।

যেহেতু ছাগলের দুধে গণপ্রকার ক্ষতিকর পদার্থের মাত্রা বেশি পাওয়া যায় না এবং শারীরিক ক্ষতি করে না। সুতরাং বলা যায় যে ছাগলের দুধ হচ্ছে অবশ্যই একটি উপকারী দ্রব্য আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য এবং শারীরিক গঠনের জন্য। আপনার শরীর যদি দুর্বল থাকে এবং কাজ করতে যদি দ্রুত বিশ্রামের প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্যই আপনি ছাগলের দুধ পান করুন।

কেননা ইহার ফলে আপনার শারীরিক ক্লান্তি দূর হবে এবং দুর্বলতা কাটিয়ে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারবেন যা অবশ্যই শান্তির মূল।

ছাগলের দুধের মধ্যে রয়েছে অনেক বেশি উপকারিতা এবং সবচেয়ে বড় বিষয় হলো ইহার মাধ্যমে মাথার স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়।

আরও পড়ুন: ছাগলের খাদ্য তালিকা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top