কবুতর পালন পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা

কবুতর পালন বর্তমানে আমাদের দেশে অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এবং প্রত্যেকে কবুতরকে অনেক বেশি ভালোবাসা থাকে। আপনিও যদি আপনার বাসায় কবুতরের খামার করতে চান বা পালন করতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি পড়ুন কবুতর পালনের উদ্দেশ্যে।

কবুতরের খামার করতে চাইলে বা কবুতর পালতে করতে চাইলে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হয় এবং কবুতরকে দেখাশুনা করতে হবে। আবার নির্দিষ্ট পদ্ধতি অবলম্বন করে না থাকলে কবুতর এর লাভজনক পালা সম্ভাব নয় এবং কবুতরের যত্ন ঠিকমতো না পারলে কবুতরের সমস্যা হবে।।

কবুতর পালন
কবুতর পালন

তাই অবশ্যই আমাদের পুরো পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে সম্পূর্ণ পালন পদ্ধতি সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করুন কবুতরের পালন করার জন্য।

আবার ব্যবস্থাপনা সম্পর্কেও খেয়াল রাখতে হবে কেননা ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে খেয়াল না রাখলে লস হয়ে যাবে এবং কবুতর পালন হবে না।

কবুতর পালন পদ্ধতি

যেকোনো পশু পালনতে গেলে আমাদেরকে পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে এবং ঠিক কবুতর পাখিদের জন্য ব্যতিক্রম হবে না। অর্থাৎ কবুতরের লাভজনক পালা বের করতে হলে অবশ্যই আমাদের সকলকে কবুতর পালনের পদ্ধতি মানতে হবে।

কবুতর পালার ক্ষেত্রে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয়, যেমন:

  • প্রথমে একটি ঘর নির্বাচন করতে হয় থাকার জন্য, উপযুক্ত খাঁচা নির্বাচন করতে হয়।
  • উপযুক্ত খাঁচা বা ঘর নির্মাণের পর অবশ্যই খাবার দেওয়ার জায়গা গঠন করতে হবে।
  • কবুতর পালতে অবশ্যই খাদ্য হিসেবে গম প্রদান করবেন।
  • সম্পূরক খাদ্য হিসেবে কোন প্রকার খাদ্য প্রদান করার দরকার নেই।
  • মুক্ত ভাবে চাষ করবেন বা পালন করবেন, কবুতর বদ্ধ করে রাখার জিনিস নয়।
  • নিজে বাসা বাড়ির মধ্যে অবশ্যই কোন প্রকার উচ্চ আওয়াজ রাখা যাবে না।
  • হিংস্র কোন প্রাণী অর্থাৎ কুকুর এর মত পোষা যে পালন করা যাবে না।
  • সপ্তাহে ডাক্তার পরামর্শ অনুযায়ী দুই ফোঁটা ড্রপ পানিতে মিশিয়ে দিবেন খাওয়ার জন্য।

শুধুমাত্র এই কয়েকটি পদ্ধতি অবলম্বন করার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই কবুতরের পালতে পারেন এবং মুগ্ধ হতে পারবেন কবুতরে। যেহেতু কবুতর একটি পোষা প্রাণী তাই খুব সহজে কবুতর পালা যাবে কয়েকটি পদক্ষেপ ও পদ্ধতি অবলম্বন করে।

কবুতর পালনের ব্যবস্থা

আপনি যদি কবুতর পালতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কিছু না কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে আপনার কবুতরের জন্য। আর যে সকল ব্যবস্থা অবলম্বন করে আপনি সফলভাবে আপনার কবুতর মুগ্ধকর করতে পারবেন তা এখানে উল্লেখ হবে।

এই কবুতর পালতে কিছু ব্যবস্থাপনা অবলম্বন করতে হয়, যেমন:

  • অবশ্যই কবুতরের জন্য যে ঘর বা বাসা নির্মাণ করবেন তা উচু স্থানে অবস্থান করাতে হবে।
  • আপনার কবুতর যেন সুষ্ঠুভাবে ডিম পাড়তে পারে এবং বাচ্চা জন্মাতে পারে তার দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।
  • যে ঘর নির্মাণ করবেন সেটি অবশ্যই কাঠের তৈরি হতে হবে যেন আঘাত না পায় কবুতর।
  • কোন প্রকার অতিরিক্ত আবর্জনা রাখা যাবে না এবং নেট জাল ব্যবহার করা যাবে না।
  • কবুতর যেন উপযুক্ত সুযোগ-সুবিধা উপভোগ করতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।
  • কবুতরকে উপযুক্ত পরিবেশে অবস্থান করতে হবে যেন ইচ্ছে মতো উড়তে পারে।

এগুলো ছিল কিছু ব্যবস্থাপনা যে ব্যবস্থাগুলো গ্রহণ করার মাধ্যমে আপনি আপনার কবুতর সঠিক মত পালতে করতে পারবেন। আর সঠিক মত কবুতর লালন করার মাধ্যমে অবশ্যই এটি আপনাকে মুগ্ধ করবে এবং সে সাথে বাড়ির সৌন্দর্য বাড়াবে।

আরও পড়ুন: ফসল কি?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top